chess101-lecture08

একটি খেলার তিনটি অংশঃ

একটা দাবা খেলার তিনটি অংশ। প্রারম্ভিক ভাগ, মধ্যভাগ ও অন্তিম ভাগ বা opening, middlegame and endgame। এই তিনটি ভাগের প্রত্যেকটির খেলা পরিচালনার কৌশল অন্যটার থেকে অনেক আলাদা। তাই একটা পুরো খেলা পরিচালনা শেখার জন্য আমরা তিনটি ভাগ কে আলাদা করে শিখবো। আমার পরের বেশ কয়েকটি লেকচারে পরপর প্রত্যেকটা ভাগ নিয়ে আলোচনা করবো।

অবশ্য সমস্ত খেলাতেই তিনটি অংশ থাকে না। যেমন নিচের খেলা টা ধরা যাকঃ

1.f4 e5 2.g4 Qh5#

দুই চালেই খেলা খতম। এই খেলার কোনো মধ্যভাগ বা অন্তিম ভাগ নেই তা বুঝতে কারও অসুবিধা হবার কথা নয়। এমনকি প্রারম্ভিক ভাগ ও প্রায় নেই। অথবা, নিচের খেলা টি ধরা যাক

1.e4 e5 2.Bc4 Nc6 3.Qh5 Nf6 4.Qxf7#

মাত্র চার চালেই কালোর রাজা কিস্তিমাত হয়েছে। এক্ষেত্রে খেলা টা আগের থেকে একটু লম্বা, তবে এই খেলারও কোনো মধ্যভাগ বা অন্তিম ভাগ নেই।

সুতরাং, একজন খেলোয়াড় ভালো খেলতে না পারলে খুব সহজেই একদম শুরুতে খেলা শেষ হয়ে যেতে পারে। তবে দুজন খেলোয়াড় ভালো খেললে সাধারণত অনেক লম্বা খেলা হয়। এরকম খেলায় অনেক চাল থাকে, এবং তিনটি বিভাগ ই থাকে। যে সমস্ত খেলায় তিনটি ভাগই আছে আমরা এখানে সেরকম খেলার কথা বলছি। এই তিনটি ভাগের কি কি প্রধান পার্থক্য আমরা এখানে তা নিয়ে আলোচনা করবো। খেলা ভালোভাবে পরিচালনা করতে গেলে তিনটি ভাগ ই ভালোভাবে পরিচালনা করতে শিখতে হবে। নীচে প্রত্যেকটা বিভাগ সম্বন্ধে সংক্ষিপ্ত বর্ণনা দেওয়া হলো।

প্রারম্ভিক ভাগ (Opening):

খেলার প্রারম্ভিক ভাগে প্রত্যেকে নিজের শক্তি বাইরে নিয়ে আসে ও পরবর্তী ভাগের খেলার জন্য তৈরী হয়।

ওপেনিং এর প্রধান উদ্দেশ্য হলোঃ

  1. যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সমস্ত ঘুটি কে একসাথে বাইরে ভালো জায়গায় এনে ভবিষ্যতের যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হওয়া।
  2. বোর্ডের কেন্দ্রর উপর নিজের দখল প্রতিষ্ঠা করা।
  3. কাসলিং এর মাধ্যমে রাজা কে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া।

রাজা কে নিরাপদ জায়গায় নিয়ে যাওয়ার জন্য বহুল ব্যবহৃত একটা পদ্ধতি হলো কাসলিং বা দুর্গ প্রতিষ্ঠা। সমস্ত ঘুটি বাইরে আনা ও রাজার নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার পর দুই নৌকার মধ্যে সরাসরি সংযোগস্থাপন সম্পন্ন হলে ওপেনিং সমাপ্ত হয়েছে বলা চলে। খেলা কেমন ভাবে চলছে তার উপর নির্ভর করে ওপেনিং সাধারণত ৭-১৫ চাল অবধি চলে।

প্রত্যেকটা খেলার শুরুর অবস্থান একই, তাই অভিজ্ঞ খেলোয়াড় হলে ওপেনিং এ আপনি আপনার খেলার পুরনো জ্ঞ্যান কিছুটা কাজে লাগিয়ে পরিচালনা করতে পারবেন। দুই পক্ষের পছন্দের চাল এর উপর ভিত্তি করে অনেক রকম  ভাবে ওপেনিং খেলা হওয়া সম্ভব। এরকম দুটো খুব জনপ্রিয় ওপেনিং এর নাম হলো কুইন্স গামবিট ডিক্লাইন্ড ও রুই লোপেজ বা স্প্যানিশ ওপেনিং। এই দুটো ওপেনিং বহুদিনের পুরনো, কয়েক শতাব্দী ধরে খেলা হয়ে আসছে। এখনও গ্রান্ডমাস্টার দের মধ্যে বহুল ব্যবহার দেখা যায়। তবে এছাড়াও আরও অনেক বহুল প্রচলিত ওপেনিং আছে। সবার নাম মনে রাখা প্রায় অসম্ভব, দরকার ও নেই।

মধ্যভাগ (middlegame):

খেলার প্রারম্ভিক ভাগ শেষ হবার পর মধ্যভাগ শুরু হয়। খেলার মধ্যভাগে সাধারণত দুজনের ই সমস্ত শক্তির বিকাশ সম্পুর্ণ হয়েছে, এবং অপেনিং কেমন ভাবে খেলা হয়েছে তার উপর নির্ভর করে মধ্যভাগ কোনো একটা পজিশনে পৌছবে। মধ্যভাগে বোর্ডে প্রচুর ঘুটি থাকে, আর দুপক্ষের ই নানান রকমের চাল দেওয়ার সম্ভবনা থাকে।  খেলার মধ্যভাগ খুব জটিল, কারন প্রত্যেকটি খেলায় আপনি একটা সম্পুর্ণ নতুন অবস্থানে পৌছবেন, এবং সেই নতুন পজিশন অনুযায়ী আপনাকে বুঝে খেলা পরিচালনা করতে হবে।

খেলার মধ্যভাগের প্রধান লক্ষ্য হলো

  1. পজিশন অনুযায়ী পরিকল্পনামাফিক খেলা এগিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং আক্রমণ রক্ষণ ইত্যাদি ব্যাপারে নজর রাখা।
  2. সুযোগ বুঝে প্রতিপক্ষের ঘুটি জিতে নেওয়া বা সমস্ত শক্তি ব্যবহার করে প্রতিপক্ষের রাজাকে কিস্তিমাত করা।
  3. নিজের রাজাকে কিস্তিমাত থেকে রক্ষা করার জন্য নিরাপদ জায়গায় রাখা খুব জরুরি।

মধ্যভাগের কিছু সাধারণ কৌশল জানা থাকলে খেলার মধ্যভাগ পরিচালনা করার সময় সেসব কৌশল আপনাকে সাহায্য করবে। কি ভাবে পরিকল্পনা করা সম্ভব, বা কিভাবে প্রতিপক্ষের ঘুটি জিতে নেওয়া সম্ভব তা আমরা পরে শিখবো। তবে ওপেনিং এর মতো চেনা পজিশন পাবেন না, প্রত্যেকটি পজশন আলাদা, তাই আপনার নিজের বিচার-বিবেচনা এক্ষেত্রে সবচেয়ে প্রাধান্য পাবে। খেলা কেমনভাবে চলছে তার উপর নির্ভর করে খেলার ৭-১৫ চাল থেকে শুরু করে ৩০-৫০ চাল অবধি খেলার মধ্যভাগ চলতে পারে।

অন্তিমভাগ (endgame):

খেলার মধ্যভাগ শেষ হলে অন্তিম ভাগ শুরু হয়। খেলার অন্তিমভাগের প্রধান বৈশিষ্ট হলো দুই পক্ষের ই বেশিরভাগ ঘুটি খাওয়া যাবার পর মাত্র একটা বা দুটো ঘুটি অবশিষ্ট থাকে, কিছু বোড়ে অবশিষ্ট থাকে, এবং সাধারণত বোর্ডে মন্ত্রী থাকে না – এর ফলে বিপক্ষের রাজাকে সরাসরি কিস্তিমাত সাধারণত সম্ভব নয়। তাই বোড়ে কে শেষ ঘর অবধি নিয়ে গিয়ে মন্ত্রী তুলতে পারলে খেলায় জেতার সম্ভবনা প্রবল হয়। আর যেহেতু বোর্ডে বেশি ঘুটি থাকে না, তাই কিস্তিমাতের সম্ভাবনা কম, তাই রাজা বোর্ডের কোনার নিরাপদ অবস্থান থেকে বোর্ডের একদম মাঝখানে এসে সরাসরি যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে। যার রাজা তাড়াতাড়ি মাঝে আসতে পারে সাধারণত তার জেতার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

সুতরাং খেলার অন্তিম ভাগের প্রধান লক্ষ্য হলোঃ

  1. নিজের ঘুটি কে সুবিধাজনক জায়গায় নিয়ে যাওয়া।
  2. রাজাকে যুদ্ধক্ষেত্রের মাঝে নিয়ে আসা।
  3. নিজের বোড়ে বোর্ডের শেষপ্রান্তে নিয়ে গিয়ে মন্ত্রী তোলা এবং প্রতিপক্ষ যাতে মন্ত্রী না তুলতে পারে সেদিকে নজর রাখা।

খেলার মধ্যভাগ সমাপ্ত হবার পর থেকে শুরু করে একদম শেষ চাল অবধি এন্ডগেম বা অন্তিম ভাগের খেলা চলে।

খেলার তিনটি ভাগ সম্বন্ধে প্রাথমিক ধারণার জন্য এখন এটুকু মনে রাখলেই চলবে। এরপর কয়েকটা লেকচার ধরে আমরা প্রত্যেকটি বিভাগ নিয়ে বিশদে আলোচনা করবো।

লেখার বাকি অংশটায় খেলা শেখার বিশেষ কিছু নেই, তবে গল্পের মতো পড়তে পারেন।

দাবার ঘড়ি chess clock

প্রতিযোগীতামূলক দাবা খেলার সময় খেলোয়াড়দের খেলা শেষ করার জন্য একটা সময়সীমা বেধে দেওয়া হয়। সময়সীমা কতক্ষণ হবে তা আগে থেকে ঠিক করা হয়। সময়ের প্রতি নজর রাখার জন্য খেলায় একটা বিশেষ রকমের ঘড়ি ব্যবহার করা হয়, যাতে দুটো ঘড়ি একসাথে থাকে। একটা ঘড়ি সাদার জন্য, অন্যটা কালোর জন্য। সাদার চালের সময় সাদার ঘড়ি চলে, কালোর ঘড়ি বন্ধ থাকে। সাদা চাল সমাপ্ত করার পর একটা বোতাম চাপে। এর ফলে সাদার ঘড়ি বন্ধ হয়ে যায় এবং কালোর ঘড়ি শুরু হয়। কালো চাল দেবার পর আবার অন্য একটা বোতাম চাপে, এতে কালোর ঘড়ি বন্ধ হয় ও সাদার ঘড়ি চলতে শুরু করে। এরকম করে চলতে চলতে খেলা শেষ হবার আগে যদি কারো সময় ফুরিয়ে যায় তবে সে হেরে যায়।

সময়সীমা অনুযায়ী খেলার প্রকারভেদ

খেলার ধরণ অনুযায়ী খেলার সময়সীমা অনেক রকমের হতে পারে। যেমনঃ

  • ক্লাসিক্যাল দাবা (classical chess):

টুর্নামেন্টের  লম্বা খেলা গুলো সাধারণত এই নিয়ম মেনে খেলা হয়। কোন টুর্নামেন্টের খেলার সময় দেখলে হয়তো এরকম দেখতে হবেঃ

2 hr for first 40 moves + 1 hr for next 20 moves + 3o min/player — 30 second increment from move 1/61.

এর মানে হলো যেকোনো একজন খেলোয়াড় প্রথম ৪০ টা চালের জন্য ২ ঘন্টা পাবে। একজন খেলোয়াড় একটা চালের পিছনে ১ ঘন্টা ৫৯ মিনিট সময় ব্যয় করলে বাকি ১ মিনিটের মধ্যে বাকি ৩৯ টা চাল শেষ করতে হবে, নয়তো সময়ের জন্য হেরে যাবে। দুজন খেলোয়াড় ই প্রায় পুরো সময় ব্যয় করলে প্রথম ৪০ টা চাল সমাপ্ত হতে ২+২ বা ৪ ঘন্টা মতো সময় লাগে। কোন খেলোয়াড় ৪০ টা চাল দেবার পর তার ঘড়িতে পরের ২০ টা চালের জন্য ১ ঘন্টা যোগ করা হয়। ৪০+২০ বা ৬০ চালের পর প্রত্যেক খেলোয়াড় এর ঘড়িতে আরো ৩০ মিনিট যোগ করা হয়। একটা লম্বা খেলা অনেক সময় ধরে চললে ৭-৮ ঘন্টা ধরে চলতে পারে। 30 second increment এর মানে হলো প্রত্যেক চাল এর পর আপনার ঘড়িতে ৩০ সেকেন্ড যোগ করা হবে। টুর্নামেন্টের নিয়ম অনুযায়ী প্রথম চাল বা ৬১ তম চাল থেকে বাড়তি সময় যোগ করা হয়।

দুর্ভাগ্যবশত প্রত্যেকটা টুর্নামেন্টের সময়সীমা অন্যটার থেকে একটু আলাদা হয়, একদম বাঁধাধরা কোন সময়সীমা নেই। কোথাও কোথাও প্রথম ৪০ চাল এর জন্য দু ঘন্টার বদলে দেড় ঘন্টা দেওয়া হয়। এর ফলে খেলোয়ারডের বেশ সমস্যা হয়। একটা সিরিজে ক্রিকেট টেস্ট ম্যাচ ৪ দিনের, পরের সিরিজে ৫ দিনের, তার পরের সিরিজে ৩ দিনের হলে খেলোয়াড় দের কি রকম সমস্যা হতো ভাবুন, তাহলেই বুঝতে পারবেন।

  • র‍্যাপিড দাবা (rapid chess):

কোন নির্দিষ্ট বাধাধরা সময়সীমা নেই, তবে একজন খেলোয়াড়ের পুরো খেলার জন্য বরাদ্দ সময় ১৫-৩০ মিনিটের মধ্যে হলে সেই খেলা কে র‍্যাপিড দাবা বলা হয়। র‍্যাপিড দাবার একটা খেলা ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘন্টা মতো চলতে পারে। এখনকার খুব জনপ্রিয় র‍্যাপিড দাবার জন্য ব্যবহৃত সময় হলো ২৫ মিনিট + ১০ সেকেন্ড। প্রথম ভাগ টা খেলার জন্য বরাদ্দ মোট সময়, দ্বিতীয় ভাগ টা বোঝাচ্ছে প্রত্যেক চালের পর ঘড়িতে ১০ সেকেন্ড যোগ হবে।

  • Blitz chess

একজন খেলোয়াড়ের পুরো খেলার সময়সীমা ৫ মিনিটের বেশি কিন্তু ১০ মিনিটের কম হলে সাধারণত এই ক্যাটেগরি তে পড়ে। ইন্টারনেটে সবচেয়ে জনপ্রিয় সময় হলো ৫ মিনিট + ০ সেকেন্ড। খেলায় প্রত্যেক চালের শেষে বাড়তি সময় না থাকার জন্য সাধারণত শেষের দিকে ১০-২০ সেকেন্ড বাকি থাকা অবস্থায় আসল খেলার বদলে কে কত তাড়াতাড়ি মাউস চালাতে পারে তার প্রতিযোগীতা চলে। এই প্রতিযোগীতা বেশ মজার, তবে এই ধরনের খেলাকে সাধারণত সিরিয়াসলি নেওয়ার কোন কারন নেই। যারা এরকম মাউস প্রতিযোগীতায় যেতে চান না তারা সাধারণত ৫ মিনিট + ১/২ সেকেন্ড বা ৩ মিনিট + ১/২ সেকেন্ড সময় নিয়ে খেলেন। ৩ মিনিট + ২ সেকেন্ড সময়সীমা ও খুব জনপ্রিয়।

  • Bullet chess

একটা পুরো খেলার সময়সীমা সাধারণত ১ থেকে ২ মিনিট। খুব জনপ্রিয় বুলেট সময়সীমা হলো ১মিনিট+০সেকেন্ড। অর্থাৎ পুরো খেলাটা ১ মিনিটে শেষ করতে হবে, কোন বাড়তি সময় নেই। এই ফরম্যাটে দাবা কম, মাউস রেস অনেক বেশি। বুঝতে পারছেন আপনি খুব তাড়াতাড়ি চাল দিতে পারলে একটা সময়ের পর আপনার প্রতিপক্ষের সময় ফুরিয়ে যাবে, ফলে আপনি জিতে যাবেন। তবে টাইটেলধারী খেলোয়াড়রা ১ মিনিটের খেলায় ও বেশ ভালো খেলতে পারেন। সাধারণত মজার জন্য, বা কোন একটা বহুচর্চিত ওপেনিং বারবার অভ্যাসের জন্য বুলেট গেম খেলে থাকেন। এরকম ফরম্যাটে এক ঘন্টায় একজন খেলোয়াড় ২৫-৩০ টা গেম শেষ করতে পারেন।

  • Correspondence chess or Postal chess

এই ফরম্যাট বুলেট চেস এর একদম উলটো। এরকম নামের কারন হলো বহুদিন আগে বা প্রাচীনকালে (!!) চিঠির মাধ্যমে দাবা খেলা হতো। এখন ইন্টারনেটের যুগে সেসবের খুব একটা দরকার নেই। এই ফরম্যাটে একজন খেলোয়াড়ের প্রত্যেক চালের জন্য সাধারণত কয়েকদিন সময় দেওয়া হয়। একটা খুব জনপ্রিয় সময়সীমা হল ৩ দিন/চাল। এছাড়া ৫ বা ৭ দিন/চাল ও জনপ্রিয়। আমি সাধারণত ৫ দিন/চাল ফরম্যাটে খেলি। এতে দু একদিন চাল দিতে ভুলে গেলে সময়ের জন্য হেরে যাওয়ার হাত থেকে বাঁচা যায়।

কর্মজীবনে ব্যস্ততার জন্য বা অন্য কারনে যাদের বোর্ডে বসে ৫-৭ ঘন্টা ধরে লম্বা গেম খেলার সময় নেই ( আমার নেই) তাদের জন্য এই সময়সীমা ভালো। আপনি যখন সময় পাবেন তখন নিজের পছন্দমতো চাল দিয়ে রাখবেন। তারপর আপনার প্রতিপক্ষ আবার তার সময়মতো চাল দিয়ে রাখবে। এতে একটা খেলা অনেকদিন চলে, তবে একসাথে আপনি অনেকগুলো খেলা খেলতে পারেন।

অন্য ফরম্যাটের সাথে এই ফরম্যাটের প্রধান পার্থক্য হলো আপনি খেলা সংক্রান্ত যত খুশি বইপত্র/লেখা/ডাটাবেস সব কিছু ব্যবহার করতে পারেন। এবং সেরা চাল কোনটা তা বোঝার জন্য বোর্ডের ঘুটি নেড়েচেড়ে দেখতে পারেন, তবে দাবা ইঞ্জিন ব্যবহার করা চলবে না।

  • Advanced chess

নিয়ম আগের (করেসপন্ডেন্স চেস) মতোই, তবে এক্ষেত্রে দাবা ইঞ্জিন ব্যবহার করা যাবে। খেলার পথে আমাদের এতদিনের সঞ্চিত অভিজ্ঞতা/জ্ঞান ও মানুষের দূরদৃষ্টি ও কম্পুটার এর গণনা করার শক্তি যোগ করা হয়। এই ফর্মাটে কোন পজিশনে  সাধারণত absolute best চাল খোঁজার চেষ্টা করা হয়, বা পজিশনের chess truth খোঁজার চেষ্টা করা হয়। সৌভাগ্যবশত এখনও অবধি কেও খেলার একদম শুরু থেকে দাবা কে solve করে ফেলতে পারেনি। দাবা খেলার সমাধান হয়ে গেলে উত্তরটা হয়তো এরকম হবে…1.e4 wins. মানে এই চালের পর যে চাল ই দেওয়া হোক না কেনো, দু পক্ষের সেরা চাল এর পর প্রথম খেলোয়াড় এর জয় নিশ্চিত। এরকম এখনো হয়নি, বা আগামী ৫০ বছরে হবার সম্ভাবনা খুব কম।

  • chess960 বা ফিশার র‍্যান্ডম চেসঃ

স্টান্ডার্ড দাবা খেলায় একজন খেলোয়াড় ওপেনিং চাল এর জন্য প্রস্তুতি নিতে পারেন। এই প্রস্তুতি কতদূর হবে সেটা নির্ভর করছে আপনি কোন লেভেলে খেলছেন তার উপর। একজন বিগিনার ১-২ চাল এর পরেই নিজে ভাবতে শুরু করে, আর একজন পেশাদার খেলোয়াড় খেলার ধরণ এর উপর নির্ভর করে ১০-১৫ বা ২০-২৫ টা চাল আগের প্রস্তুতি থেকে খেলে দিতে পারেন। একদম আধুনিক খেলায় শুরুর দিকটা প্রস্তুতির যুদ্ধ হয়, তারপর একটা সময় পর দক্ষতার যুদ্ধ শুরু হয়।

আজ থেকে ১৫-২০ বছর আগে অবধি সেরা খেলোয়াড়দের প্রস্তুতি বাকিদের থেকে অনেক ভালো হতো, কারন একদম সেরা খেলোয়াড়রা বাকিদের চেয়ে অনেক ভালো প্রস্তুতি নিতে পারতেন। কিন্তু আজকের যুগে কম্পুটার খুব শক্তিশালী হয়ে যাবার পর সবার প্রস্তুতি ই খুব ভালো, তাই একজন দাবা খেলা ভালো বুঝলেও প্রস্তুতিতে সুবিধা পাওয়ার সুযোগ কম, কারন অন্যজন কম্পুটার এর সাহাজ্যে খেলার দখল এর ঘাটতি অনেকটা পূরণ করতে পারেন। আগের যুগে কম্পুটার খুব শক্তিশালী না হওয়ার জন্য একজন সাধারণ খেলোয়াড়ের পক্ষে একজন সেরা খেলোয়াড়ের মতো প্রস্তুতি সম্ভব ছিল না।

যাইহোক, প্রত্যেকটা খেলা একই পজিশন থেকে শুরু করার একটা বড়ো সমস্যা রয়েছে। সেটা হলো, শুরুর দিকে একদম দক্ষতার লড়াই হওয়া বেশ কঠিন। এই সমস্যা সমাধানের জন্য অনেক রকমের পরীক্ষা নিরীক্ষা হয়েছে। এর ফলে দাবার মতো অনেক খেলার (chess variants) জন্ম হয়েছে। এদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো chess960 or Fischer random chess.

chess960 খেলার নিয়ম সাধারণ দাবার মতোই, তবে খেলার শুরুতে খেলার আগের মূহুর্তে লটারির মাধ্যমে প্রথম ও অষ্টম সারির সমস্ত ঘুটি র‍্যান্ডম বসিয়ে দেওয়া হয়। ক্যাসলিং এর জন্য একটু আধটু বিশেষ নিয়ম প্রয়োগ করা হয়, তাছাড়া বাকি সব নিয়ম একই রকম। এর ফলে প্রস্তুতির কোন ঝামেলা নেই, একদম প্রথম চাল থেকে ভাবনা বাধ্যতামূলক। কয়েকটা চালের পর মধ্যভাগে গিয়ে সাধারণ দাবার মতো করে খেলা পরিচালনা করা যায়।

এই খেলার আবিষ্কর্তা ফিশার, তাই খেলার এরকম নাম। খেলার নিয়ম মেনে ঘুটি shuffle এর ফলে মোট ৯৬০ টা ওপেনিং পজিশন সম্ভব, তাই এরকম নাম। এই ৯৬০ টা পজিশনের মধ্যে একটা পজিশন হলো স্টান্ডার্ড দাবার শুরুর পজিশন।

অনেক পেশাদার খেলোয়াড় ই প্রস্তুতির হাত থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আরও বেশি করে chess960 টুর্নামেন্ট খেলতে চান, কিন্তু এখনও অবধি এই ফর্মাট খুব বেশি জনপ্রিয় হয়নি। তবে আমার মতে chess960 হলো দাবার ভবিষ্যত। chess960 আমার খুব প্রিয়।

ইন্টারনেটে দাবা চর্চার ভালো জায়গাঃ

এই লেকচার টা খুব ছোটো, তাই অনলাইনে দাবা খেলা/পড়া/শেখা/চর্চা করার কিছু ভালো জায়গার নাম এখানে দিচ্ছি। কেউ অনলাইনে দাবা সংক্রান্ত কিছু খুঁজলে এই লিস্টে একবার চোখ বুলিয়ে নিতে পারেন, কাজের কিছু পাবেন আশা করি। লিস্ট টা বানাচ্ছি আমার এতদিনের অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে, শুধুমাত্র আমার জানা জিনিসপত্রের উল্লেখ করছি, তাই অনেক কিছু হয়তো বাদ রয়ে যাবে। বিনামূল্যে যেসব রিসোর্স পাওয়া যায় সেগুলোর উপর জোর দেবো।

  • দাবা খেলার ভালো ওয়েবসাইট

  1. chess.com – একদম ফ্রী। সব রকম খেলোয়াড়দের জন্য ভালো।
  2. chesscube.com – ফ্রী। আমার জানা একমাত্র ওয়েবসাইট যেখানে chess960 খেলা যায়।
  3. gameknot.com – ফ্রী। করেসপন্ডেন্স দাবার জন্য খুব ভালো।
  4. playchess.com – ফ্রী, তবে প্রোগ্রাম ডাউনলোড ও ইনস্টল করতে হয়।
  5. Internet Chess Club (ICC) – খেলতে গেলে মেম্বারশিপ এর পয়সা লাগে। বেশিরভাগ টাইটেলধারী খেলোয়াড়রা প্রধানত এখানে খেলেন।
  • দাবা খেলার ডাটাবেস

  1. chessgames.com – এখানে খেলা যায় না, তবে খেলা চর্চার জন্য খুব ভালো জায়গা। প্রত্যেকটা খেলার নিচে বিশ্লেষণ, আলোচনা ইত্যাদির জন্য জায়গা আছে। বেশিরভাগ জিনিসপত্র বিনামূল্যে পাওয়া যায়। এখানে একদম উচু লেভেল খেলোয়াড়দের খেলার ডাটাবেস আছে, তবে পুরো ডাটাবেস দেখতে গেলে মেম্বারশিপ লাগে।
  2. 365chess.com – বিনামূল্যে ডাটাবেস দেখার সবচেয়ে ভালো জায়গা. তবে সাধারণ মানের খেলোয়াড় এর খেলায় ডাটাবেস ভর্তি, তাই ডাটাবেস দেখার সময় রেটিং ফিল্টার করতে ভুলবেন না।
  3. chessbase.com – এরা ডাটাবেস এর জন্য বিশ্ববিখ্যাত। সব বড়ো খেলোয়ার এদের ডাটাবেস ব্যবহার করে। কিছুদিন আগে অবধি এদের ডাটাবেস এর কিছু অংশ বিনামূল্যে ব্যবহার করা যেত, এখন সম্ভবত আর করা যায় না।
  • দাবা খেলার খবর

  1. chessbase.com – দাবার খবরের ব্যাপারে এরাই শেষ কথা।
  2. chessvibes.com – বেশ ভালো।
  • দাবা শেখার জন্য ওয়েবসাইট

  1. chess.com – নতুন বা পাকা সমস্ত রকমের খেলোয়াড়দের জন্য এখন সবচেয়ে ভালো জায়গা
  2. chessville.com – এদের বিগিনার সিরিজ টা নতুন খেলোয়াড় দের জন্য বেশ ভালো।
  3. chesscafe.com – এখানে প্রত্যেক মাসে দাবা সংক্রান্ত আর্টিকেল ছাপা হয়। বিষয় বিবিধ। অনেক লেখক আছেন। আর্কাইভে গেলে সমস্ত আর্টিকেল দেখতে পাবেন।
  4. chesspub.com – ভালো টুর্নামেন্ট খেলোয়াড় (অন্তত ১৫০০-১৬০০ রেটিং ) ছাড়া বাকিদের জন্য খুব কঠিন জায়গা। যারা ওপেনিং সম্বন্ধে বেশ ভালো জানেন কিন্তু কোন একটা নির্দিষ্ট ওপেনিং এর একটা বিশেষ প্রশ্নের উত্তর পাচ্ছেন না  তারা এখানে চেষ্টা করতে পারেন।

আপাতত এটুকুই, এখন আর কিছু মাথায় এলো না। পরে মনে পড়লে যোগ করে দেবো। কেউ এই লিস্টে নতুন রিসোর্স যোগ করতে চাইলে নিচে মন্তব্যের জায়গায় লিখুন। বাকিদের কাজে লাগবে।

লেখাটি কেমন লাগলো জানাবেন। পরের লেকচারে খেলার প্রারম্ভিক ভাগ (ওপেনিং) এর নিয়মাবলী নিয়ে আলোচনা করবো।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s